আল্লাহই উত্তম হেফাজতকারী

প্রথমবার যখন মামলার আসামী হই, তখন ডিপার্টমেন্টের টিউটোরিয়াল পরীক্ষা দিচ্ছিলাম। প্রথম যখন গ্রেপ্তার হই, তখন ঐ মামলার প্রধান আসামী করে প্রায় ৭ মাসের হাজতবাস। শেষবার যখন এরেস্ট হই তখন যে খেদমত করা হয়েছে তার ফলশ্রুতিতে এখনও ঠিকমত হাটতে পারি না।  এখন, আর কি বাকি আছে?
হয়ত ক্রসফায়ার দিবে, অথবা আমার লাশটা খুঁজে পাওয়া যাবে না এই তো?
এই হচ্ছে আমার অবস্থা।  আমার ভাইদের মধ্যে আমার মনে হই আমিই সবচেয়ে কম কষ্ট পেয়েছি। আমার পুর্বসুরীদের মধ্যে সবচেয়ে কম মামলা আমার।
আমার সভাপতির ১৯ টা, তার আগের কলেজ সভাপতির ৯ টা, তার আগের কলেজ সভাপতি ৮ টা এর আগের কলেজ সভাপতির ১৭ টা।
অন্য দলে উত্তরাধিকার সুত্রে টেন্ডার, অর্থ আর সুবিধা পায়।
আমরা উত্তরাধিকারসুত্রে পাই, মামলা, বাড়িছাড়া হওয়া, পুলিশের রিমান্ডের নির্যাতন, পঙ্গুত্ব।

ভাই, আমরাই তো টিকে আছি, তাই না!
খোদার কসম আমরা টিকে থাকবো। একটা আয়াত মনে পড়ে গেলো।

“তারা মুখের ফুঁৎকারে আল্লাহর আলো নিভিয়ে দিতে চায়। আল্লাহ তাঁর আলোকে পূর্ণরূপে বিকশিত করবেন যদিও কাফেররা তা অপছন্দ করে।” সুরা সফঃ৮

আমরা মরতে প্রস্তুত,জীবন আমাদের বেঁচে দিয়েছি। আল্লাহ আমাদের জীবন কিনে নিয়েছেন। নিশ্চয়ই আমরা উত্তম চুক্তিতে আবদ্ধ হয়েছি। আমাদের চুক্তি আল্লাহর সাথে।
আর ওরা, যারা আল্লাহর রাস্তার বিরোধী, তারা?

“ওরা মরিবে না,যুদ্ধ লাগিলে লুকাইবে কচু বনে
দন্ত নখর বিহীন ওরা তবু কোলাহল করে অংগনে।”

মা আসসালাম।

Posted from WordPress for Android

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s