মুখোশ।।।


”চিত্ত যেথা ভয়শূণ্য, উচুঁ যেথা শির
জ্ঞান যেথা মুক্ত যেথা গৃহের প্রাচীর”
রবি ঠাকুরের এই কয়টা কবিতার লাইন শুনলে মনে হয় , আহা কতই না সুন্দর কথা বলেছেন।
জীবন স্বার্থক।
জীবনটা যদি এমন হতো।

অথবা, ”আমরা সবাই রাজা, আমাদেরই রাজার রাজত্বে”

আরো মুক্ত চিন্তা।

কিন্তু বাস্তবতা?

আলাদা ভাই, আলাদা।

চিত্ত ভয় দিয়ে ঠাসা, শির সবসময় নিচু, জ্ঞান এখানে চাকরী আর প্রশ্নের মাঝে বন্দি।
কবিতার খাতায় এরকম লেখা মানায় ভালো। বাস্তবতার ফ্রেমে আমরা সবাই গোলাম।

নিজেকে বন্দি করে রাখতে আমরা মুখোশ পরি। মুখোশ পরা নিজেকে আয়নায় দেখে বিদঘুটে লাগলে আরো কয়েকটা মুখোশ পরি। সবশেষে , নিজেকে চিনতে ভূল করি।
মনেই থাকে না, একদিন আমরাও মানুষ ছিলাম।
সর্বপ্রথম মুখোশ পরি, চক্ষুলজ্জার। পাছে লোকে কিছু বলে। এই চিন্তায় ভালো কাজের চৌদ্দগোষ্ঠী উদ্ধার করা হয় কিন্তু খারাপ যেটা অন্ধকারের সেটা বন্ধ করা হয় না।
তারপর পরি, জ্ঞানের মুখোশ। পড়াশোনা করে মানুষ না হয়ে একেকটা বলদ হয়ে উঠি। দেশ দুনিয়া জাহান্নামে যাক, আমার সামনে সব খারাপ হোক, আমার সাথে হয়নি তো।
এটার পরে আসে, বাংগালী ভদ্রলোকের মুখোশ। একটা চাকরী হবে, টেবিলের নিচে দুই চার পয়সা কামাই হবে। গাড়ি হবে , বাড়ি হবে। আর নিশ্চিন্তে নিশ্চিন্তপুরীর সফর হবে। সুন্দরী বউ হলে তো কথায়ই নেই।
তারপর আসে, আমি ভালো ছিলাম টাইপ মুখোশ। নিজে অল্প বয়সে কি করেছে তার ইয়ত্তা নেই, প্রৌঢ়ত্বে এসে নিপাট ভালো মানুষ ছিলাম মনোভাব । অল্পবয়সীদের সব খারাপ। তারা ছিলেন সবচেয়ে ভালো।
আর সর্বশেষ আসে রাজনৈতিক মুখোশ। আরো স্পেসিফিক বলতে গেলে, দলবাজির মুখোশ। নিজে যে দলকে ভোট দিবে সেটা যতই খারাপ কাজ করুক না কেন, দোষ অবশ্যই বিরোধীপক্ষের।

মুখোশে মুখোশে জীবন ঝালাপালা হয়ে যাচ্ছে। আর কত?

সর্বশেষ নজরুলের মত বলতে পারার লোকজন কি আছে?
”আমি মানি নাকো কোন আইন,
আমি ভরা তরী করি ভরাডূবি
আমি ভীম, ভাসমান মাইন।”

আপনার রাতের ঘুম হারাম হলেই আমি শান্তি পাই। নতুবা আমার মুখোশ পরে ঘুমান।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s